গুগল এডসেন্স আর্নিং কীভাবে ২৫% এর বেশি বাড়বে জানুন

গুগল এডসেন্স

এডসেন্স এর ইনকাম নির্ভর করে অনেক কিছুর উপর।যেমন, কিওয়ার্ড। ট্রাফিক কোয়ালিটি। কোন দেশের ট্রাফিক। এছাড়াও আরও কিছু সুক্ষাতিসুক্ষ জিনিস আছে।

বুস্ট এডসেন্স আর্নিং  

কিওয়ার্ড:—
আপনি কোন কিওয়ার্ড টার্গেট করে ব্লগপোস্ট লিখেছেন এবং রিডার কোন কিওয়ার্ড সার্চ করে আপনার সাইটে এসেছেন এটা প্রধান বিষয়। এর পর দেখার সেই কিওয়ার্ড এর সিপিসি রেট কত।
যেমন insurance, Life insurance, web hosting, website এই কিওয়ার্ডগুলির রেট অনেক বেশি। কিন্তু গল্প, কবিতা, প্রেম, এসবের সিপিসি নেই বললেই চলে।
সিপিসি হচ্ছে কস্ট পার ক্লিক

অর্থাৎ একটি এডে ক্লিক হলে আপনি কত টাকা পাবেন। সেটাই সিপিসি। তাহলে বুঝতেই পারছেন ভাল কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ না করলে যতই ভিজিটর আসুক আর এডে ক্লিক হোক তাতেও খুব একটা লাভ হবে না।

ট্রাফিক কোয়ালিটি :-

ট্রাফিক কোয়ালিটিরও বিভাজন আছে, ১) সার্চ কোয়ালিটি ২) কান্ট্রি কোয়ালিটি
  • আপনার আর্টিকেলের প্রধান কিওয়ার্ড আর ভিজিটরের সার্চ করা কিওয়ার্ড যদি সেম হয় তাহলে সেই ভিজিটরকে ভাল কোয়ালিটির ভিজিটর মানা হবে।
  • ইউসএ ইউকে কানাডা সুইজারল্যান্ড এর মতো উন্নত দেশের ট্রাফিককেও ভাল কোয়ালিটির ট্রাফিক বলা যেতে পারে। এক্ষত্রেও কিওয়ার্ড গুরুত্বপূর্ণ অবশ্যই।
  • একি লেখা একি কিওয়ার্ড অথচ ভারত বাংলাদেশের ট্রাফিকেই ইনকামে প্রচুর ডিফারেন্স হবে। ভারতের ট্রাফিকে ইনকাম ১০০ টাকা হলে বাংলাদেশের ট্রাফিকে ইনকাম হবে ৬০ টাকার নিচে।
এরপরের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ২৪ ঘন্টার ভেতর ট্রাফিক কোন সময় বেশি আসে। মানে দিনে না রাতে।
জানি আপনি হয়তো ভাবছেন এতে সিপিসি-র সঙ্গে কী যোগাযোগ। কিন্তু পুরো যোগাযোগটা এখানেই।
ধরুন আমি বিজ্ঞাপন দাতা, আমি গুগলকে (এডওর্যাড) বললাম বা সিলেক্ট করলাম,— আমার সিপিসি যেন রাত ১২টা থেকে সকাল ৬ টা পর্যন্ত ২০টাকা পার ক্লিক থাকে। আর সকাল ছটার পর যেন কম থাকে। কিংবা এর উল্টোটা। তারমানে আমি রাতের ট্রাফিকে বেশি ইনভেস্ট করতে চাইছি।
উদাহরণ:— এডাল্ট ট্রাফিক (পর্ণ ট্রাফিক নয় কিন্ত, গুগল পর্ণ সাইটে বিজ্ঞাপন দেয় না) এডাল্ট ট্রাফিকরা যেহেতু সব জায়গায় সবকিছু সার্চ করতেও পারে না কিনতেও পারে না। তাই তারা রাতে কেনাকাটা করে। বিজ্ঞাপন দাতারাও এই জন্যেই রাতে বেশি ইনভেস্ট করেন।
আশাকরি বিষয়টা বোঝাতে পারলাম।

এরপর আসি মূল প্রসঙ্গে, তাহলে ২৫% এডসেন্স আর্নিং  বাড়াবো কীভাবে?

  1. কিওয়ার্ড সার্চ করে সিপিসি রেট দেখে আর্টিকেল লিখতে হবে। সিপিসি রেট দেখার জন্য এবং কিওয়ার্ড সার্চের জন্য Google keyword planner বেস্ট। এবং ফ্রি। অলটারনেটিভ হিসেবে ubersuggest ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে এটিও আর ফ্রি থাকল না। পেড হয়ে গেছে। তবুও ফ্রিতেই অনেককিছু তথ্য জানা যাবে।
  2. এমন আর্টিকেল লিখতে হবে যাতে ভিজিটর সহজে পালিয়ে যেতে না পারে। ধরুন আপনি মটন কশা নিয়ে লিখছেন, এমন ভাবে লিখুন যাতে পাঠক মটন কশা থেকে মটন কারি সবকিছুই পড়তে চায়। যেন চিকেন না খেয়ে কিছুতেই না যায়। অর্থাৎ ট্রাফিক যদিওবা মটনের খোঁজে এসেছিল, অথচ মটন চিকেন দুই গিলেছে। আরও কিছু গেলাতে পারলে আরও ভাল। যত সময় আপনার সাইটে থাকবে এবং এক পেজ থেকে অন্যপেজে ঘুরবে, ততই লাভ। বাউন্স রেট অনেক কম হবে।
  3. সাইট লোডিং টাইম কম হতে হবে। মানে ওয়েবসাইটটি যেন দ্রুত খোলে। এখানে জানিয়ে রাখি, ১ সেকেন্ড দেরিতে খুললে ১০০ জন ভিজিটরের ৭ জন অন্যত্র চলে যায়। ৫ সেকেন্ড দেরি হলে ১০০ জনের ৩৫ জন পালিয়ে যাবে। হাজার জনের ৩৫০ জন পালাচ্ছে তাহলে।
  4. ১০০০ জনে যদি আপনার ইনকাম হত ১০০ টাকা, ৩৫ জন পালিয়ে গেলে ইনকাম হবে ৬৫ টাকা। ভাবুন ভাবতে শিখুন। আপনি বাঙালি তাই এগুলো আপনার অনেক আগে ভাবার কথাছিল আপনি তাও ভাবেননি।
  5. বিজ্ঞাপনের পরিমান কমান। এডসেন্স সেটিং এ গিয়ে কমানো বাড়ানো যায়। বিজ্ঞাপনের পরিমান কম হলে কোয়ালিটি ভাল হবে। পাঠক বিব্রত হবে না। সিপিসি অনেক বেশি আসবে।
  6. এডসেন্স অটো-অপ্টিমাইজড করে রাখুন, তাহলে গুগল নিজেই এক্সপেরিমেন্ট করতে পারবে। সিপিসি অনেক বাড়বে তাতে।
আমি আমার ব্লগের সব পোস্টেই প্রচুর গোপন তথ্য এবং তত্ত্ব দিয়েছি, যা গুগলে একটি সাইটকে রেঙ্ক করতে এবং এডসেন্স ইনকাম বহুগুণ বাড়িয়ে দিতে সাহায্য করবে 👉 Blog in Bangla
কোরাতেও আমি ব্লগিং নিয়ে প্রচুর তথ্য দিয়েছি যা একজন ব্লগারের অনেক কাজে লাগবে। আপনি আমার কোরা প্রোফাইল ভিজিট করেও অনেক লেখা পড়তে পারবেন।
#googleAdSense

2 thoughts on “গুগল এডসেন্স আর্নিং কীভাবে ২৫% এর বেশি বাড়বে জানুন”

  1. এটা আমার জন্য খবই প্রয়োজনিয় পোষ্ট ছিল । আপনাকে অনেক ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য ।

    Reply

Leave a Comment